সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

‘স্বপ্ন সেটা যেটা তোমায় ঘুমাতে দেয় না'

Published: 2016-07-21 00:00:00

সুদীপ বিশ্বাস, অতিথি লেখক: অনেক দিনের ইচ্ছা ছিল এপিজে আব্দুল কালাম আজাদের জীবনী গ্রন্থ ‘উইংস অফ ফায়ার’ পড়ব। এখনও বইটি হাতে আসেনি। তবে তার লেখা কিছু উক্তি পড়েছিলাম। যেগুলো আমার স্মৃতিতে গেঁথে রয়েছে। উনার কথাগুলো মেনে চললে আর সে অনুযায়ী কাজ করলে সাফল্য আসবে বলে আমার ধারনা। বই পড়ার স্পৃহা আমার খুব ছোটবেলা থেকেই।

ভালো বই পড়ে জ্ঞানের ভাণ্ডার সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি ভালো মানসিকতা তৈরিতে বইয়ের গুরুত্ব অনেক। প্রগতি, সততা ও নৈতিকতার শিক্ষা বিষয়ক বই পেলে কুসংস্কারকে অনায়াসে ছুঁড়ে ফেলা যায়। এ ব্যাপারে আব্দুল কালাম আমার কাছে স্মরণীয় ও বরণীয় একজন মানুষ।

উনার সবচেয়ে বড় পরিচয় উনি একজন শিক্ষক। যিনি তরুণদের অনুপ্রেরণা দিয়েছেন, শিক্ষা দিয়েছেন, আলোর পথ দেখিয়েছেন।  

শৈশবে দারিদ্র্যের সাথে লড়েছেন তিনি। তবুও জয় করেছেন সমস্ত প্রতিকূলতাকে। কারণ তিনি ঘুমিয়ে স্বপ্ন দেখতেন না।

তিনি বলতেন, 'স্বপ্ন সেটা নয় যেটা তুমি ঘুমিয়ে দেখো। স্বপ্ন সেটা যেটা তোমায় ঘুমাতে দেয় না।'

রাষ্ট্রপতি হিসাবেও কখনও তিনি তার নীতি, বিশ্বাস, আদর্শ থেকে একচুলও নড়েননি।

তিনি বলেছেন, ‘সফলতার কাহিনী না পড়ে ব্যর্থতার কাহিনী পড়। লোকটি কেন ব্যর্থ হয়েছে, তার কিসের অভাব ছিল, তার ভুলগুলো খুঁজে বের কর। তোমার যাতে সে ভুল না হয় সেদিকে খেয়াল রাখো।’

তরুণদের অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন তিনি। ঢাকা সফরের সময় তরুণদের তিনি বলেন, সবগুলো স্বপ্ন অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত থামা যাবে না।

‘স্বপ্নকে হতে হবে বিশাল। জীবনে ছোট লক্ষ্য নির্ধারণ একটি অপরাধ।’

এই মানুষটি তরুণদের উৎসাহ দিয়ে বলেছেন, জীবনের লক্ষ্য অর্জনের পথে এগিয়ে যেতে যেতে বারবার সমস্যা আসবে, সংকট পথ আটকাবে। কিন্তু হৃদয়ে রাখতে হবে একটি সংকল্প।  

তিনি বলেছেন, “আমি সংকটজয়ী হব, সব সমস্যা পেছনে ফেলে ছিনিয়ে নেব সাফল্য।’

জগতের মহান ব্যক্তিত্বদের পদচিহ্ন অনুসরণ করে তাদের জীবন থেকে অনুপ্রেরণা নিতেও তরুণদের উপদেশ দিয়েছেন এই বিজ্ঞানী।

সচ্ছলতার শৈশব ছিল না কালামের। খাবার জোটাতে আট বছর বয়সে তিনি খবরের কাগজও বিক্রি করতেন বলে বাংলাদেশের তরুণদের বলেছিলেন তিনি।

শৈশবে পারস্যের কবি জালালউদ্দিন রুমির একটি কবিতাই কালামের হৃদয়ে স্বপ্নের বীজ বুনে দিয়েছিল।

“আমি সম্ভাবনা নিয়ে জন্মেছি। আমি জন্মেছি মঙ্গল আর বিশ্বাস নিয়ে। আমি এসেছি স্বপ্ন নিয়ে। মহৎ লক্ষ্য নিয়েই আমার জন্ম। হামাগুড়ির জীবন আমার জন্য নয়, কারণ আমি ডানা নিয়ে এসেছি। আমি উড়ব, উড়ব, আমি উড়বই”-এই কবিতাটি গত বছর ঢাকার তরুণদের আবৃত্তি করে শোনান তিনি।

ভারতের এই সাবেক রাষ্ট্রপতি বিজ্ঞানী এপিজে আব্দুল কালাম ১৯৩১ খ্রিস্টাব্দের ১৫ অক্টোবর ব্রিটিশ ভারতের মাদ্রাজ প্রেসিডেন্সির রামেশ্বরমের এক তামিল পরিবারে জন্ম নেন।

তার বাবা জয়নুল আবেদিন একজন নৌকার মালিক এবং মা আশিয়াম্মা ছিলেন গৃহিনি। খুব গরিব পরিবারের সন্তান হওয়ায় খুব অল্প বয়সেই তাকে জীবিকার প্রয়োজনে বিভিন্ন পেশায় কাজ করতে হয়েছিল।

 

 

 

ঢাকা, ২১ জুলাই/ আমার ক্যাম্পাস/ এ এম