রবিবার, ২৭ মে ২০১৮, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

সংগীতশিল্পী লাকী আখন্দের অবস্থার উন্নতি

Published: 2016-07-21 00:00:00

বিনোদন: ফুসফুসের ক্যান্সারে চিকিৎসাধীন সংগীতশিল্পী লাকী আখন্দের শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

কিংবদন্তি এই শিল্পীকে শিগগির একটি কেমোথেরাপি দেওয়া হতে পারে জানিয়েছেন তার মেয়ে মাম্মিন্তি আখন্দ নূর। বুধবার মাম্মিন্তি বলেন, “আব্বুর শারীরিক অবস্থা এখন একটু ভালো। চিকিৎসকরা বলছেন, এখন তার কেমোথেরাপি শুরু করা যায়। শুক্রবার অথবা শনিবার তা শুরু হতে পারে।”

গত বছর গুরুতর অসুস্থ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলেন লাকী আখন্দ। তখন চিকিৎসকরা তার ফুসফুসে ক্যান্সার ধরা পড়ার বিষয়টি শনাক্ত করেন।

এরপর ঢাকা থেকে থাইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার চি‌কিৎসায় পাঁচ লাখ টাকা অর্থ সহায়তাও দেন। শিল্পীর পরিবারের সদস্যরা জানান, বিদেশে চিকিৎসার পর সম্প্রতি রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে লাকী আখন্দকে একটি কেমোথেরাপি দেওয়া হয়।

এরপর কেমোথেরাপির ধকল সামলে উঠতে না উঠতেই পিঠ ও কোমরের ‘প্রচণ্ড ব্যথায়’ আক্রান্ত হলে গুরুতর অবস্থায় গত ১৫ জুলাই সন্ধ্যায় কিংবদন্তি এই গীতিকার-সুরকারকে বারডেম থেকে বেসরকারি ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ইউনাইটেড হাসপাতালের লাকী আখন্দ চিকিৎসক ডা. সাজ্জাদের অধীনে রয়েছেন। লাকী আখন্দ একাধারে সঙ্গীত পরিচালক, সুরকার এবং গীতিকারও। ১৯৮৪ সালে সারগামের ব্যানারে বের হয় তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘লাকী আখন্দ’।

ওই অ্যালবামের বেশ কয়েকটি গান ব্যাপক সাড়া ফেললেও ১৯৮৭ সালে ছোট ভাই হ্যাপী আখন্দের মৃত্যুর পরপর সঙ্গীতাঙ্গন থেকে অনেকটা স্বেচ্ছা নির্বাসনে যান নেন এই গুণী শিল্পী।

মাঝখানে প্রায় এক দশক নীরব থেকে লাকী আখন্দ ১৯৯৮-এ ‘পরিচয় কবে হবে’ ও ‘বিতৃষ্ণা জীবনে আমার’ অ্যালবাম দুটি নিয়ে আবারও ফিরে আসেন শ্রোতাদের মাঝে। এরপর টেলিভিশনের লাইভ প্রোগ্রামে তাকে দেখা গেছে; মেয়ে মাম্মিন্তিকেও বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার উত্তরসূরী হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন দর্শকদের সঙ্গে।

 

 

ঢাকা, ২১ জুলাই/ আমার ক্যাম্পাস/ এ এম