শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮, ৮ আষাঢ় ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

ওয়ালটন পণ্যের বিক্রি বেড়েছে ৪৫ শতাংশ

Published: 2016-08-11 00:00:00

ডেস্ক রিপোর্টঃ দেশীয় ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড ওয়ালটনের তৈরি প্রযুক্তি পণ্যে গ্রাহকদের আস্থা ও চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। দেশের ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্যের বাজারে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের অবস্থান আরো সুসংহত হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় বাড়ছে ওয়ালটনের প্রবৃদ্ধি।

গত বছরের প্রথম ছয় মাসের (জানুয়ারি-জুন) তুলনায় চলতি বছর একই সময়ে ওয়ালটন পণ্যের বিক্রি বেড়েছে প্রায় ৪৫ শতাংশ। যা ছাড়িয়ে গেছে চলতি বছরের প্রথমার্ধে বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা।
   
ওয়ালটন সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের শুরু থেকেই অভ্যন্তরীণ বাজারে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের সব পণ্যের চাহিদা ও বিক্রি বেড়েছে। বিশেষ করে, ফ্রিজ, এলইডি টেলিভিশন, এয়ার কন্ডিশনার, মোবাইলফোনসহ ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল হোম অ্যাপ্লায়েন্সের চাহিদা বেড়েছে।

ওয়ালটন বিপণন বিভাগের ডেপুটি অপারেটিভ ডিরেক্টর মো. রায়হান জানান, গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের প্রথমার্ধে সব পণ্যের বিক্রি বেড়েছে আশাতীত। গত বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ের তুলনায় চলতি বছরের একই সময়ে ৫০ শতাংশেরও বেশি ফ্রিজ বিক্রি হয়েছে। এছাড়াও টেলিভিশন বিক্রি বেড়েছে প্রায় ৫৮ শতাংশ।

তবে চলতি বছর এলইডি টিভি বিক্রিতে প্রায় ২৪১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ওয়ালটনের, অভ্যন্তরীণ টেলিভিশন বাজারে যা একটি মাইলফলক।

সূত্র মতে, ফ্রিজ ও টেলিভিশনের মতো হোম অ্যাপ্লায়েন্সের বাজারেও ওয়ালটনের শক্তিশালী অবস্থান তৈরি হচ্ছে। চলতি বছর জানুয়ারি-জুন সময়ে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৭৮ শতাংশ বেশি হোম ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যাপ্লায়েন্সেস বিক্রি হয়েছে। ব্যাপক গ্রাহক চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ওয়ালটন নিজস্ব কারখানায় ব্লেন্ডার, ইন্ডাকশন কুকার, গ্যাস স্টোভ, রিচার্জেবল ফ্যান, সিলিং ফ্যান, এলইডি লাইট, প্যানেল লাইট, সুইচ-সকেট, এসিড লেড রিচার্জেবল ব্যাটারিসহ বেশ কিছু গৃহস্থালী পণ্য উৎপাদন করছে।

জানা গেছে, গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন কারখানায় বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও মেশিনারিজের সমন্বয়ে উৎপাদন করা হচ্ছে বিশ্বমান সম্পন্ন অর্ধশতাধিক প্রযুক্তি পণ্য। চলতি বছরের শুরু থেকেই গ্রাহকদের চাহিদা, রুচি ও ক্রয় সক্ষমতা অনুযায়ী প্রতিটি পণ্যের অসংখ্য মডেল বাজারে ছেড়েছে দেশীয় ব্র্যান্ডটি। প্রোডাক্ট লাইনে যুক্ত হয়েছে নতুন নতুন মডেলের পণ্য।

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ও বিপণন বিভাগের প্রধান এমদাদুল হক সরকার বলেন, যেকোনো ম্যাচিউরড (পরিপক্ক) প্রতিষ্ঠানের জন্য স্ট্যান্ডার্ড বা সন্তোষজনক প্রবৃদ্ধির হার ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ। ওয়ালটন প্রায় ৪৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।  

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ও বিপণন বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রেজওয়ানা বলেন, ওয়ালটনের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে আমাদের প্রবৃদ্ধি ধারাবাহিক। আশা করি সামনের দিনগুলোতে প্রবৃদ্ধির হার আরো বাড়বে।

 

 

 

 

 

 

 

 

ঢাকা, ১১ আগস্ট/ আমার ক্যাম্পাস/ এ এম