সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

বই পড়ার নানা উপকারিতা

ডেস্ক রিপোর্ট | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2016-10-15 00:00:00

শুনে আসছি যে পড়া শোনা আমাদের মানসিক সক্ষমতা, মেজাজ ও অনুভ’তির জন্য চমৎকারভাবে কাজ করতে পারে। কিছু মজার টুকরো গবেষণায় বেড়িয়ে এসেছে যে বই পড়া আমাদের জীবনে কতটা কার্যকর ভুমিকা পালন করতে পারে। দেখে নিন এবং খুজে বের করুন যে, বই পড়ার নানা উপকারিতা যা হয়তো আপনি জানতেন না। বই কে আজই বেছে নিন ।

আসুন জেনে নিই সেই সব গবেষণার কথা যা আমাদের কাছে বই পড়ার প্রকৃত উপকারিতা প্রমাণ করে।

১। পড়া শোনা কষ্ট দূর করে
তুমি যদি কষ্টে থাকো তাহলে কিভাবে সময়গুলো অতিবাহিত করবে?গান শুনে? না হেটে? সাসেক্স বিশ^বিদ্যালয়ের এক গবেষণায় নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, পড়া শোনা করে আপনি এই সময়টা অতিবাহিত করতে পারেন। তারা দেখিয়েছেন যে, গান শুনা, হাটা, চা পান করার চেয়ে পড়া শোনা করাই এ ক্ষেত্রে বেশি কার্যকর।

২। অনিদ্রা হতে মুক্তি পেতে সাহায্য করে
শান্ত হওয়া ও একটা সুন্দর রাতের ঘুমের জন্য পড়া শোনা সব চেয়ে বিশি কার্যকরী একটি পন্থা। ্উজ্জল আলো ও টেলিভিশনের স্কিনের আলো তোমার মস্তিষ্কে এই বার্তা পাটিয়ে দেয় যে, ঘুম হতে উঠার সময় হয়ে গেছে। আর হালকা আলোয় আপনার পছন্দের বইটি পড়া এর বিপরীত প্রভাব ফেলে বার্তা দেয় যে, এটিই আপনার বিশ্রামের উপযুক্ত সময়।

৩। স্বায়ত্তশাসিত মানুষ হতে সাহায্য করে
বিশেষ করে গল্পের বই পড়ার সময় আপনি নিজেকে গল্পের ভেতরে নিয় যাবেন এবং গল্পের চরিত্রের সাথে নিজের একটা আবেগের বন্ধন তৈরী হবে।

৪। আমাদের মস্তিষ্কের ক্রিয়াকে উন্নত করে
ইমোরি বিশ^বিদ্যালয়ের বৈজ্ঞানিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, যখন আমরা কোন বই পড়ি তখন নিজেকে বুদ্ধিমান মনে হয। দুই দিনে একটা বই পড়া শেষ করতে পারলে আমাদের মস্তিষ্কে একটা ইতিবাচক পরিবর্তন আসে।

৫। আত্মনির্ভর আমাদের হতাশা হতে মুক্ত করে
সাম্প্রতিক একটি গবেসণাময় বলা হয় যে, হতাশা থেকে মুক্তি পাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায়গুলো মধ্যে একটি হলো পড়া। রোগীদের যদি আত্মনির্ভর একটি বই দেওয়া যায় তবে এক বছর পরে দেখা যাবে যে যারা ক্লাসিক্যাল চিকিৎসা নিয়েছেন তাদের চেয়ে কম হতাশায় তারা ভুগছেন।

৬। আপনাকে অনেক আকর্ষণীয় করে
একজন বুদ্ধমান, সুশিক্ষিত লোক অন্যদের চেয়ে বেশি অনুসরণীয়। সমগ্র গ্রুপে কথোপকথনে একজন লোক অন্যদের মনোযোগ আকর্ষণ ও প্রশংসাকে জয় করতে পারেন।

৭। জীবনের লক্ষ্যে এবং কঠিন কিছু জয় করতে উৎসাহিত করে
ওহিও স্টেট বিশ^বিদ্যালয়ের একদল গবেষক দাবি করেন যে, যত পড়িবে ততই নিজেকে নিজের চরিত্র দিয়ে তাদের মাঝে নিজেকে চিহ্নিত করতে পারিবে। ভালো পড়া শোনা আপনার জীবনে ভালবাসা ও জীবনের লক্ষ্য খুজতে প্রয়োজন একসেট ভালো বই অনুসরণ করা।

৮। যারা বই পড়া ভালবাসে তারা সামাজিকভাবে সক্রিয়
ন্যাশনাল ইনডোমেন্ট ফর দ্য আর্টসের গবেষণায় প্রস্তাব দেয়া হয় যে, যারা বই পড়তে ভালোবাসে তারা বিভিন্ন সামাজিক ও স্বাংস্কৃতিক কাজে নিজেকে অধিক নিয়োজিত রাখে।

৯। স্মৃতি চিন্তা শক্তিকে উন্নত করে
প্রত্যেক সময় পড়া মানে আপনার মস্তিষ্ককে প্রশিক্ষণ দেয়া। যখন আপনি একগুচ্ছ নতুন শব্দের মুখোমুখি হন তখন অর্থ বের করেন এবং তা আপনার স্বল্প মেয়াদী স্মৃতিতে সংরক্ষণ করেন।

১০। এটি আপনার শব্দভান্ডারকে সমৃদ্ধ করে
যখন আপনি পড়ছেন তখন ক্রমাগতভাবে শব্দ আর শব্দের মুখোমুখি হচ্ছেন যা আমরা দৈনন্দন জীবনে ব্যবহার করি না। এমনকি ঐ শব্দগুলো কখনো আপনি দেখননি অথবা ইতোপূর্বে নজরেও আসেনি। আপনি সচারচার এগুলো দেখেন না, তাই নয় কি? কারণ, যখন আমরা শব্দভান্ডার হতে এসবের শব্দ পাই তখন শুধু আপনার ক্রিয়াশীল শব্দভান্ডার সমৃদ্ধ হয় না, সাথে সাথে আপনার সাধারণ জ্ঞান ও সাক্ষরতাও বৃদ্ধি পায়।

 

 

 

ঢাকা/ এ এম