বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৪
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

আয়কর মেলায় নিতে রাস্তায় থাকছে এনবিআর’র বাস

ডেস্ক রিপোর্ট | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2016-11-01 00:00:00

সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলায় দর্শনার্থী বাড়াতে বিনা টিকিটে বাস সেবা চালু করছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

 ‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’ শ্লোগান নিয়ে মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে আয়কর মেলা।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্মাণাধীন এনবিআর ভবনে সংবাদ সম্মেলনে সংস্থার চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, রাজধানীর মিরপুর, উত্তরা, অফিসার্স ক্লাব, সেগুনবাগিচাসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে মেলায় আটটি বাস চলাচল করবে। এসব বাসে ভ্রমণে কোনো টিকিট লাগবে না।

“কর দিতে আমরা উৎসাহ দিচ্ছি। দেশে রাজস্ববান্ধব সংস্কৃতি প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে,” বলেন তিনি।

এর আগের বছরগুলোতে অফিসার্স ক্লাবসহ অন্যান্য জায়গায় অনুষ্ঠিত হলেও এবারই প্রথম এনবিআর’র নিজস্ব ভবনে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত দুপুরে এই মেলা উদ্বোধন করবেন।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মেলা চলবে।

এবারের মেলায় বিভিন্ন ধরনের সেবা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান এনবিআর চেয়ারম্যান।

এবারই প্রথমবারের মতো অনলাইনে আয়কর জমা ও বিবরণী দাখিলের সুযোগ থাকছে বলে জানান তিনি।

১ থেকে ৭ নভেম্বর সপ্তাহব্যাপী এ মেলা ঢাকা ছাড়াও বিভাগীয় শহর, জেলা ও উপজেলা শহরে অনুষ্ঠিত হবে। 'সুখী স্বদেশ গড়তে ভাই, আয়করের বিকল্প নাই' প্রতিপাদ্যে এবারের আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

# আট বিভাগীয় শহরে সাত দিন হলেও জেলা পর্যায়ে মেলা হবে চার দিন। এছাড়া ২৯টি উপজেলায় দুই দিন।

# ৫৮ উপজেলায় একদিন ভ্রাম্যমাণ মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

# ২০১০ সাল থেকে আয়কর মেলা আয়োজন করছে এনবিআর।

# এটি হবে সপ্তম মেলা।

# এতদিন আয়কর মেলা হয়েছে সেপ্টেম্বর মাসে। ১৫ সেপ্টেম্বর জাতীয় আয়কর দিবস উপলক্ষে এ মেলার আয়োজন করে আসছিল এনবিআর।

# এখন আগের তারিখ পরিবর্তন করে ৩০ নভেম্বর আয়কর দিবস পালনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেজন্য নভেম্বর মাসে আয়কর মেলা আয়োজন করা হচ্ছে।

# করদাতাদের উদ্বুদ্ধ করতে ২০০৮ সালে প্রথমবারের মতো জাতীয়ভাবে আয়কর দিবস চালু করেছিল এনবিআর। এর দুবছর পর শুরু হয় মেলা।

প্রথম দিকে শুধু ঢাকায় হলেও করদাতাদের সাড়া পাওয়ায় দেশের অন্যান্য স্থানে এ মেলার পরিসর বাড়িয়েছে এনবিআর।

বরাবরের মতো এবারও মেলায় করদাতাদের সব ধরনের তথ্য সেবা দেওয়া হবে। থাকবে ই-টিআইএন রেজিস্ট্রেশন ব্যবস্থা, রিটার্ন দাখিল, ই-পেমেন্ট কর পরিশোধ ইত্যাদি।

এছাড়া বরাবরের মতো এবারও বয়স্ক নাগরিক, প্রতিবন্ধী, মুক্তিযোদ্ধা ও নারীদের জন্য আলাদা বুথ থাকবে। কর পরিশোধের জন্য মেলায় থাকবে বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের বুথ। এছাড়া আয়কর দিবস উপলক্ষে এবারও সেরা করদাতাদের পুরস্কৃত করা হবে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রতি বছর ৩০ অক্টোবর কর দিবস ঘোষণা করে ওই সময়ের মধ্যে আয়কর বিবরণী (রিটার্ন) দাখিলের বাধ্যবাধকতা আরোপের প্রস্তাব করেন। পরে অবশ্য ৩০ অক্টোবরের পরিবর্তে ৩০ নভেম্বর কর দিবস পালনের ঘোষণা দেয় এনবিআর। তারই ধারাবাহিকতায় এবার নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে সারা দেশে আয়কর মেলা হচ্ছে।

দেশে বর্তমানে কর শনাক্তকরণ নম্বরধারী (টিআইএন) নাগরিকের সংখ্যা ১৮ লাখ হলেও রিটার্ন দাখিলকারীর সংখ্যা ১২ লাখ ৩৫ হাজার।

গতবার মেলায় ১ লাখ ৩৫ হাজার করদাতা রিটার্ন দাখিল করেছিলেন। সব মিলিয়ে কর আদায় হয়েছিল ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকার মতো।

এছাড়া বরাবরের মতো এবারও বয়স্ক নাগরিক, প্রতিবন্ধী, মুক্তিযোদ্ধা ও নারীদের জন্য আলাদা বুথ থাকবে। কর পরিশোধের জন্য মেলায় থাকবে বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের বুথ। এছাড়া আয়কর দিবস উপলক্ষে এবারও সেরা করদাতাদের পুরস্কৃত করা হবে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রতি বছর ৩০ অক্টোবর কর দিবস ঘোষণা করে ওই সময়ের মধ্যে আয়কর বিবরণী (রিটার্ন) দাখিলের বাধ্যবাধকতা আরোপের প্রস্তাব করেন। পরে অবশ্য ৩০ অক্টোবরের পরিবর্তে ৩০ নভেম্বর কর দিবস পালনের ঘোষণা দেয় এনবিআর। তারই ধারাবাহিকতায় এবার নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে সারা দেশে আয়কর মেলা হচ্ছে।

দেশে বর্তমানে কর শনাক্তকরণ নম্বরধারী (টিআইএন) নাগরিকের সংখ্যা ১৮ লাখ হলেও রিটার্ন দাখিলকারীর সংখ্যা ১২ লাখ ৩৫ হাজার।

গতবার মেলায় ১ লাখ ৩৫ হাজার করদাতা রিটার্ন দাখিল করেছিলেন। সব মিলিয়ে কর আদায় হয়েছিল ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকার মতো।

 

 

ঢাকা/ এইচ আর