বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮, ৩ শ্রাবণ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

পরিবহন সংকটে বেরোবিতে ক্ষোভ

ডেস্ক রিপোর্ট | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2016-11-08 00:00:00

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাড়ে ৮ হাজার শিক্ষার্থীদের জন্য মাত্র ৪টি বাস। প্রতিমাসে ৭৫ টাকা করে পরিবহনবাদ কর্মচারীদের কাছে হতে নেওয়া হলেও এতো দিনেও তাদের জন্য কোন পরিবহনের ব্যবস্থা করতে পারেননি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সাড়ে ৪ শত কর্মচারীদের ভাগ্যে জুটেনি একটি পরিবহনও। এদিকে পরিবহন সংবকটের জন্য প্রায়ই বাসের অপেক্ষায় দাড়িয়ে থাকেন শিক্ষার্থীরা। যদিও মাসের পর মাস দুটো বাস উপাচার্যের বাংলোয় ফেলে রাখা হয়েছে। আর এই বাস চালু না করায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করছেন শিক্ষার্থী-কর্মচারীরা।

উপাচার্যের বাংলো সূত্রে জানা গেছে,বাস দুটো দীর্ঘদিন হতে ফেলে রাখায় রং প্যাকাশে হতে বসেছে। এমনকি আরো কিছু দিন ফেলে রাখা হলে অনেক যন্ত্রাংশ অকেজোও হয়ে যেতে পারে।নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক প্রশাসনিক ভবনে কর্মরত একজন কর্মচারী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,‘ শুরু হতেই আমাদের কাছে হতে পরিবহনবাবদ ৭৫ টাকা বেতন হতে কেটে রাখা হচ্ছে। কিন্তু আমাদের পরিবণের কোন সুযোগ দিচ্ছে না।’

তিনি আরো বলেন,‘শোনা যাচ্ছে আমাদের জন্য একটি বাস আনা হয়েছে। কিন্তু তা আনা হলেও উপাচার্যের বাংলোয় ফেলে রাখা হয়েছে। মাঝে মাঝে শুনি এই চালু হবে । কিন্তু হয় আর না।’কর্মচারী ইউনিয়ে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দীতাকারী একজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছা শর্তে জানান,‘আমাদের জন্য বাস এনেও কোন কাজে দিচ্ছে না। কারণ সেটা বাংলোয় শোভা পাচ্ছে। আমাদের দেওয়া আর হচ্ছে না।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মুন্না বলেন,‘আমি শহরে থাকি। প্রায় ৮ হাজার শিক্ষার্থীদের জন্য মাত্র ৪ টি বাস। তারও আবার মাঝে মাঝে বিআরটিসি বাস দুটো বন্ধ রাখা হয়। প্রায় সময়ে আমরা বাদুর ঝোলা হয়ে যাতায়াত করি।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো বলেন,‘শুনছি আমাদের জন্য একটা নতুন বাস নিয়ে আসা হয়েছে। কিন্তু সেটি উপাচার্যের বাংলোয় শোভা বর্ধনের জন্য রাখা হয়েছে। মাঝে মাঝেই বাসটি চালু করার গুজব শুনলেও এখনো বাস্তবে তা সম্ভব হয়নি। তবে আমাদের সকল শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে উপাচার্য মহোদয়কে বাসটি দ্রুত চালু করার জন্য অনুরোধ করছি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল দফতরসূত্রে জানা যায়,চলতি বছরের মে মাসে একটি কর্মচারীদের জন্য ও শিক্ষার্থীদের জন্য একটি বাসের টেন্ডার হয়। জুন মাসেই বাস দুটো আনা হয় ক্যাম্পাসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহণপুলসূত্রে জানা যায়, শিক্ষার্থীদের জন্য ৪ বাসের মধ্যে একটি ভাড়ায় নেওয়া হয়েছে। শিক্ষকদের জন্য একটি ছোট বাস ও দুটো মাইক্রোবাস রয়েছে। কর্মকর্তাদের জন্য একটি বাস রয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কর্মচারীদের জন্য কোন বাস চালু করা সম্ভব হয়নি।

এব্যাপারে পরিবহনপুলের দায়িত্বরত কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) আলী হাসান জানান,‘শুনেছি দুটো বাস নিয়ে আসা হয়েছে।গাড়ি দুটো কবে চালু করা হবে কিংবা কবে আনা হয়েছে এব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন,‘আমি শুধু দেখাশুনা করি। আর উপাচার্য নিজেই এর দায়িত্বে। তাই এ ব্যাপারে আমি বলতে পারব না।’

এ ব্যাপারে প্রকৌশলী মোহাম্মদ জাহাঙ্গির আলমের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তা সম্ভব হনি।

 

 

ঢাকা/ এইচ আর