শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

সবুজ ক্যাম্পাস থেকে বিশ্বের আঙিনায় সিইউডিএস

সাইফুল ইসলাম | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2017-03-19 11:04:16

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে তখন ইসলামী ছাত্রশিবিরের দাপট। কথা বলতে ভয় সবার মধ্যেই। সেটা ১৯৯৬ সালের কথা। সেই পরিবেশে মুক্ত মতচর্চার জন্য এগিয়ে এলেন কয়েকজন শিক্ষার্থী। যুক্তিতর্কের মধ্য দিয়ে সত্য অনুসন্ধানের স্বপ্ন নিয়ে তাঁরা গঠন করলেন চিটাগং ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি (সিইউডিএস)। দুই দশক পার করে একুশ বছরে পা দিয়েছে সংগঠনটি।

এত বছরের পথচলায় অর্জনও আছে বলার মতো। দেশের পাশাপাশি বিদেশের নানা আসরেও যুক্তির লড়াইয়ে অংশ নিচ্ছেন এই সংগঠনের সদস্যরা। সবুজ ক্যাম্পাস থেকে যুক্তির আলো ছড়িয়ে দিচ্ছেন সারা বিশ্বে।
নৃ–বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও সিইউডিএসের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুম আহমেদের কাছ থেকে জানা গেল, ১৯৯৬ সালের ১১ নভেম্বর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আরিফুর রহমান, সাজিদ রায়হানসহ কয়েকজন মিলে প্রতিষ্ঠা করেন চিটাগং ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি (সিইউডিএস)। যখন সিইউডিএস যাত্রা শুরু করে, তখন ছিল না কোনো কার্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জারুলতলায় আর ঝুপড়িতে জমায়েত হতেন তাঁরা। চাকসুর নানা কক্ষে চলত বিতর্কের কর্মশালা। শুরুর বছরই বিতর্কের নানা আয়োজন করে সংগঠনটি। এরপর আন্তবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার মতো বড় আসর আয়োজনের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে প্রাণ সঞ্চার করে সংগঠনটি।

প্রতিষ্ঠার চার বছর পর ২০০১ সালে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সিইউডিএসকে কার্যালয়ের জন্য কক্ষ বরাদ্দ দেয়। বাণিজ্য অনুষদের সামনে অবস্থিত ভবনের একটি কক্ষে চলছে সিইউডিএসের কার্যক্রম।

সিইউডিএস সূত্র জানায়, প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত সংগঠনটি ১৩টি বিতর্ক কর্মশালার আয়োজন করেছে। আন্তবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে আটটি। ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া, গ্রিস, ভারত, নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ডিবেট চ্যাম্পিয়নশিপসহ আন্তর্জাতিক ছয়টি বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সিইউডিএসের বিতার্কিকেরা অংশ নিয়েছেন। গত ২০ বছরে প্রায় ছয় হাজার শিক্ষার্থীকে বিতর্কের প্রশিক্ষণ দিয়েছে সংগঠনটি।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় অনুষ্ঠিত ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) আয়োজিত আন্তবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় ৩২টি দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। আর এ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সিইউডিএসের বিতার্কিক ইনজামামুল হোসেন, খালিদ জুহানি ও কামরুল হাসান প্রতিনিধিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় দলের। চূড়ান্ত পর্যায়ে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বিতর্ক দলকে হারান সিইউডিএসের বিতার্কিকেরা।

সম্প্রতি একুশ বছরে পা দিয়ে গত ১২ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি সিইউডিএস আয়োজন করে দেশের সবচেয়ে বড় বিতর্ক কর্মশালার। এ কর্মশালায় অংশ নেন ১ হাজার ১৬ জন শিক্ষার্থী।
সিইউডিএসের সাবেক সভাপতি ও রসায়ন বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী কাজী জাওয়াদ হোসেন গ্রিসে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ডিবেট চ্যাম্পিয়নশিপে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। এ ছাড়া ২০১৪ সালে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ওয়ান ইয়াং ওয়ার্ল্ড সামিটে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। কাজী জাওয়াদ বলেন, ‘আমি খুব সাধারণ গ্রামের স্কুল ও কলেজ থেকে পাস করে ভর্তি হই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে। সিইউডিএস আমাকে বিতর্কে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জুগিয়েছে। আমি ২০১৬ সালে সংগঠনটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি। আমি আশা করি একসময় এ সংগঠনের বিতার্কিকেরা ওয়ার্ল্ড ডিবেট চ্যাম্পিয়নশিপে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়কে চ্যাম্পিয়ন করবে। সেদিনটি দেখার প্রতীক্ষায় থাকব।’

আরেক কৃতী বিতার্কিক জুবায়ের আহমেদ ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ডিবেট চ্যাম্পিয়নশিপে পরপর দুবার অংশ নেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী জুবায়ের ২০১৫ সালে সিইউডিএসের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন। ইন্ডিয়ান হাইকমিশনের আমন্ত্রণে তিনি অস্ট্রেশিয়ান ডিবেট চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেন। সিইউডিএস সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘২০১২ সালে আমি সিইউডিএসে যুক্ত হই। তখন বিতর্ক সম্পর্কে আমার ধারণা কম ছিল। সিইউডিএস প্রশিক্ষণ নিয়ে বিতর্ক বিষয়টা বুঝতে পারি।’

সিইউডিএসের বর্তমান সভাপতি আইন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী রাফিউল ইসলাম বলেন, ‘আমরা প্রতিবছর প্রায় ১৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ভিত্তিক বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও প্রশিক্ষণের আয়োজন করে থাকি। আমাদের মূল উদ্দেশ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিতর্কে পারদর্শী করে তোলা। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যুক্তির মাধ্যমে সবকিছু বিচার-বিশ্লেষণ করবে এটাই স্বাভাবিক। আর আমরা বিতর্ক দিয়ে যুক্তির মাধ্যমে বিচার-বিশ্লেষণ করে সবকিছু বিবেচনা করতে শেখাই শিক্ষার্থীদের।’ (প্রথম আলো)

 

 

 

ঢাকা/ এইচ আর