বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৪
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

কুষ্টিয়ায় টয়লেটের ট্যাংকি থেকে কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার

ইবি প্রতিনিধি, কুষ্টিয়া | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2017-08-19 23:29:29

অপহরনের তিনদিন পর কলেজছাত্র সাগর সাহার (১৯) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার রাত ৮টার দিকে কুষ্টিয়ার হরিনারায়ণপুর উপজেলার শিবপুর গ্রামের মৃত সিদ্দিক মেম্বারের বাড়ির পাশে অবস্থিত পরিত্যক্ত টয়লেটের ট্যাংকি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) রতন শেখ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

কে বা কারা হত্যাকান্ডটি ঘটিয়েছে তা এখোনা নিশ্চিত করা যায়নি। তবে এর সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে ইবি থানা পুলিশ।

সাগর সাহা সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের ব্যবসায়ী প্রদীপ সাহার ছেলে ও স্থানীয় খাতের আলী ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

জানা যায়, পুলিশ সাগরের বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে একটি নালা থেকে সাগরের ব্যবহৃত বাইসাইকেল, বাজারের ব্যাগ ও এক জোড়া স্যান্ডেল উদ্ধার করে। পরে সিদ্দিক মেম্বারের বাড়ির পাশের একটি পরিত্যক্ত টয়লেট থেকে সাগরের লাশ উদ্ধার করে। লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, স্থানীয়রা বিকালে শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পেছনের বাঁশ বাগানের পরিত্যক্ত একটি টয়লেটের ভেতর এক তরুনের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।

পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে গত বুধবার সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর থেকে অপহৃত কলেজছাত্র সাগর সাহার পরিবারকে খবর দেয়। পরে অপহৃতের পরিবার লাশটি সাগরের বলে নিশ্চিত করে। প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে- শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বুধবার সন্ধ্যায় বাজার করার জন্য সাইকেল নিয়ে পাশের হরিনারায়ণপুর বাজারে যায় সাগর। এরপর সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পরে রাতে একটি মোবাইল ফোন থেকে কল করে বাবা প্রদীপ সাহাকে জানানো হয় তার ছেলেকে অপহরণ করা হয়েছে।ছেলেকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে চাইলে ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে।

পরে বৃহস্পতিবার ফোন করে মুক্তিপণের পরিমাণ কমিয়ে ৩০ লাখ টাকা চায় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার রাত ১২টার মধ্যে এ টাকা না দিলে সাগরকে মেরে লাশ গুম করে ফেলা হবে বলেও ফোনে হুমকি দেয়া হয় সাগরের পরিবারকে। এ ঘটনায় প্রদীপ সাহা ইবি থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের নামে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন।

 

 

 

ঢাকা/ অনি আতিকুর রহমান/ এ এম