শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১২ ফাল্গুন ১৪২৪
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

নাফ নদীতে ভাসছে মানবতা!

রাবি প্রতিনিধি | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2017-09-14 22:30:56

‘‘সারাবিশ্বকে আজ চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে মানবতা আজ পদদলিত। নাফ নদীতে ভাসছে মানবতা, জীবন্ত মানুষগুলো আগুনে পুড়ে কয়লা হচ্ছে।

আর মানবতাবাদী সংগঠনগুলো এ দৃশ্যগুলো তাকিয়ে দেখছে। মিয়ানমারের অত্যাচারে লাখ লাখ রোহিঙ্গাদের ঢল বাংলাদেশে।’’ কথাগুলো বলছিলেন রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি আব্দুল মজিদ অন্তর।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের উপর জাতিগত নিপীড়ন, অব্যাহত হত্যাযজ্ঞের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদী সাংস্কৃতিক সমাবেশ পালনকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তারা প্রতিবাদী বিভিন্ন সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

এসময় তিনি আরো বলেন‘‘আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে আশ্রয় দিয়েছেন। তাঁকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু এ আশ্রয় কোনো স্থায়ী সমাধান না। এটা সাময়িক সহযোগিতা হতে পারে। রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিয়ে সে দেশে ফিরত পাঠাতে হবে। আর এজন্য মিয়ানমারের ওপর চাপ বৃদ্ধি করতে হবে।’’

বর্তমান সভাপতি ইন্দ্রজিৎ কুমার বলেন, ‘‘আমরা অং সাং সু চিকে জানতাম তিনি একজন গণতন্ত্রকর্মী। কিন্তু আজ তার কার্যকলাপে তিনি ইাতহাসে হিংস্র মানবী, রক্তপিপাসী মানবী। কিন্তু আপনি পরাজিত হবেন। এখনও সময় আছে, রোহিঙ্গাদের সসম্মানে ফিরিয়ে নিন।’’

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক অন্তর আলীর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য দেন দপ্তর সম্পাদক মহিউদ্দিন মানিক, অর্থ সম্পাদক রাসেল আমিন, বিশ^বিদ্যালয় থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক মো. রোকনোজ্জামান, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এ. এম শাকিল হোসেন, মার্কেটিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী কাওসার নাহিদ প্রমুখ।

এ কর্মসূচির সঙ্গে একাত্বতা প্রকাশ করেন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি ও ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক গোলাম সারওয়ার, ফোকলোর বিভাগের শিক্ষক আমিরুল ইসলাম কনক, হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষক মো. ইমরান হোসেন, নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মো. গোলাম ফারুক সরদার টুকু।

উল্লেখ্য, গত ২৪ অগাস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পরিপ্রেক্ষিতে সে দেশের সেনাবাহিনী ও স্থানীয়দের হামলায় রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ঢল নামে।

 

 

 

 

ঢাকা/ মাহফুজ মুন্না/ এইচ আর