শনিবার, ২৬ মে ২০১৮, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

ক্ষমতা ধরে রাখতে সম্মেলন আয়োজনে আগ্রহ নেই শাবি ছাত্রলীগের

জুনেদ আহমদ | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2017-09-26 17:41:16

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলনের সময় মাত্র ১৪দিন বাকি। কিন্তু এ নিয়ে তেমন তৎপরতা নেই। বিষয়টি নিয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। কেন্দ্রী নির্ধারিত ১০ অক্টোবর সম্মেলন হবে কিনা এ নিয়ে নানা সন্দেহ প্রকাশ করছেন। সম্মেলনের জন্য কর্মীরা প্রতীক্ষার প্রহর গুনলেও শীর্ষ নেতাদের গড়িমসিতে দিন পার হচ্ছে শাবি ছাত্রলীগের।

গত ২৭ জুলাই কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১০ অক্টোবর সম্মেলন করার নির্দেশ দেয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সঞ্জীবন চক্রবর্তী পার্থকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে সহ-সভাপতি রুহুল আমিনকে শাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়।

সম্মেলনরর জন্য দুই মাস সময় পেয়েও কোন প্রচার কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ করেনি শাখা ছাত্রলীগ।

গত ৮ মে ২০১৩ সালে ৭ সদস্য বিশিষ্ট শাখা ছাত্রলীগের কমিটি ঘটন করা হয়।কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার এক বছরের মাথায় পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। অভিযোগ রয়েছে, এ কমিটিতে ছাত্রদল, অছাত্র ও বিবাহিতরা স্থান পান। এর পর থেকে শুরু হয় অন্তঃকোন্দল। উপাচার্যবিরোধী আন্দোলনে শিক্ষকদের লাঞ্ছিত, সংস্কৃতিকর্মী পেটানো, ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতিতে কতিপয় নেতার যুক্ত থাকার অভিযোগ, আলোচিত বদরুল-কাণ্ডসহ একের পর এক বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে আলোচনার কেন্দ্রে পরিণত হয় শাবিপ্রবি ছাত্রলীগ।

শীর্ষ পদ প্রত্যার্শীদের কয়েকজন বলেন, আমরা এখন উভয় সঙ্কটে আছি। সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে কি, হবে না তা ক্লিয়ার জানতে পারছি না। কেউ বলছে হবে, কেউ বলছে হবে না। সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকায় প্রস্তুতি নিতে পারছি না। সব মিলিয়ে আমরা চরম বিপাকে পড়েছি। আমাদের নেতাদের উচিত বিষয়টি দ্রুত ক্লিয়ার করা। কারণ আর বেশিদিন তো সম্মেলনের নেই।

শাখা ছাত্রলীগ সূত্র জানায়,ক্ষমতা ধরে রাখতে সম্মেলন আয়োজনের আগ্রহ নেই শাবি ছাত্রলীগের  জ্যেষ্ঠ নেতাদের।  ফলে অনেকটাই ঝুলে গেছে সম্মেলন হওয়ার বিষয়টি।

শাখা শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রুহুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা আগাচ্ছি।

এ ব্যাপারে জানতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে পাওয়া যায়নি।

 

 

 

ঢাকা/ প্রতিনিধি/ এইচ আর