বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করলে ধারাবাহিক কর্মসূচি দেবে গণজাগরণ

ডেস্ক রিপোর্ট | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2018-02-01 18:47:16

মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন চূড়ান্ত করলে লাগাতার আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ইমরান এইচ সরকার।

বৃহস্পতিবার গণজাগরণের পক্ষ থেকেও প্রতিবাদে শামিল হওয়ার কথা জানান তিনি।

ইমরান বলেছেন, ‘দুর্নীতিবাজ রক্ষার ডিজিটাল আইন, রুখে দাঁড়াও’ শিরোনামে শুক্রবার বিকাল ৪টায় শাহবাগে সমাবেশ করবেন তারা।
এই কর্মসূচির কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, “গণজাগরণ মঞ্চ সবসময় বাক স্বাধীনতার পক্ষে লড়াই করে। এই আইনটি নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় যে রকম আলোচনা চলছে- তাতে এটা স্পষ্ট যে এটি বাংলাদেশে এযাবৎকালের সবচেয়ে নিপীড়নমূলক আইন।
“আগে যেটা ছিল, ৫৭ ধারা – এর মূল ভুক্তভোগী ছিল লেখক-ব্লগাররা। আমরা আশা করেছিলাম এবার এর সমাধান হতে যাচ্ছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে,( নতুন আইনে) লেখক-ব্লগার তো বটেই, জনগণের আশ্রয় হিসেবে পরিচিত গণমাধ্যমেরও গলা টিপে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই আইন ৫৭ ধারার চেয়ে ভয়াবহ।”

তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা সাংবাদিক হয়রানি ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্বের অভিযোগ উঠলে প্রতিবাদের মুখে ওই ধারাটি বাতিলের উদ্যোগের সঙ্গে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করছে সরকার।
সংসদে তোলার আগে মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত প্রস্তাবিত আইনে দেখা যায়, ৫৭ ধারার বিষয়বস্তুগুলোই রয়েছে নতুন প্রস্তাবিত আইনে।

পাশাপাশি এতে যুক্ত ৩২ ধার অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার পথ রুদ্ধ করবে বলে গণমাধ্যমকর্মীরা মনে করেন।
সরকারি গোপন তথ্য-উপাত্ত ডিজিটাল উপায়ে ধারণ, স্থানান্তর বা সংরক্ষণ করা এবং তাতে সহায়তাকে গুপ্তচরবৃত্তির অপরাধ হিসেবে গণ্য করে ১৪ বছরের কারাদন্ড বা ২৫ লাখ টাকা জরিমানার কথা বলা হয়েছে প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে।

ইমরান বলেন, “আমরা সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই, এই আইন রদ করা হোক। যদি না হয়, তাহলে আমরা দীর্ঘমেয়াদী আন্দোলনের কর্মসূচি দেব।”


 

 

 

 

ঢাকা/একে