শনিবার, ২৬ মে ২০১৮, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

ইবির ভিসির উপর হামলার প্রতিবাদে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মানববন্ধন

ইবি প্রতিনিধি | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2018-02-06 16:04:09

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর উপর হামলার প্রতিবাদ ও দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

সোমবার ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের সামনে তারা এ কর্মসূচি পালন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. রাকিবা ইয়াসমিন, আইন বিভাগের প্রফেসর ড. শাহজাহান মন্ডল প্রমুখ ও আইন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ও সহকারী জজ হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত মো. তরিকুল ইসলাম প্রমূখ।

আইন বিভাগের প্রফেসর ড. শাহজাহান মন্ডল বলেন, ‘আইনের ভাষায় একটা কথা আছে তা হলো, বিচার করতে যদি দেরী করা হয়, ধরেই নেয়া হয় বিচার প্রক্রিয়াকে অস্বীকার করা হচ্ছে। আমরা চাইনা বিচারহীনতার কোন সংস্কৃতি আমাদের দেশে অবিরাম গতিতে চলতে থাকুক। আমরা চাই রাঘব-বোয়ালই হোক আর চুনোপুটিই হোক এই হামলার সাথে যারা জড়িত তাদের বিচারের আওতায় এনে শাস্তি প্রদান করা হোক।’

মানবন্ধনে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. রাকিবা ইয়াসমিন বলেন, ‘মাননীয় ভিসি স্যারের উপর হামলার ঘটনায় আমরা মর্মাহত। রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের পক্ষ থেকে এই বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। সাথে সাথে এই হামলার সাথে জড়িতদের দ্রুত সময়ের মধ্যে শনাক্ত করে শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

এসময় প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ‘ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির উপর যে হামলা হয়েছে, আমরা চাই অনতিবিলম্বে এই ঘটনার মুখোশ উন্মোচন হোক এবং জাতির কাছে পরিষ্কার হোক।’

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শাহেদ হাসানের সঞ্চালনায় শিক্ষার্থীদের মাঝে বক্তব্য প্রদান করেন, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নুরুজ্জামান সাগর, রাফসান জনি, রাশেদুল ইসলাম, দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী কাকন ও ইশান প্রমূখ। তারা সকলেই তাদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষক ও অভিভাবকের উপর হামলার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে শাস্তি দাবি করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জানুয়ারী রাত পৌনে ৪টার দিকে ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা থানার বড়দা নামক স্থানে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর গাড়ীতে হামলা করে দুবৃর্ত্তরা। এতে তিনি পালিয়ে প্রাণে বেঁচে গেলেও তাকে বহনকারী গাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর করা হয়। সেই ঘটনায় শৈলকূপা থানায় মামলা দায়ের করা হলেও এখনো পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি বলে জানা গেছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

ঢাকা/অনি আতিকুর রহমান/একে