শনিবার, ২৬ মে ২০১৮, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

ইবির ৫বিভাগে ২২শিক্ষক নিয়োগ: আঞ্চলিকতা ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ

ইবি প্রতিনিধি | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2018-02-07 14:15:33

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) পাঁচটি বিভাগে ২২জন নতুন শিক্ষককে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এতে আঞ্চলিকতা ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠেছে।  সোমবার  বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩৮তম সিন্ডিকেট সভা থেকে তাদের নিয়োগের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, গতকাল সোমবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর বাসভবনে ২৩৮ তম সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষক নিয়োগ, অভ্যন্তরীণ পদোন্নতি, এমফিল ও পিএইচডি ডিগ্রী প্রদানসহ বিভিন্ন বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বের সাথে আলোচনা চলছিল ৫বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ বোর্ডের অনুমোদন বিষয়টি নিয়ে।

জানা যায়, সভা থেকে অনুমোদনপ্রাপ্ত হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগে ৪পদের বিপরীতে ৮জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগ, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ, মাংর্কেটিং বিভাগ ও অর্থনীতি বিভাগে মোট ১৪ জন শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

এর মধ্যে পরিসংখ্যান বিভাগে ২জন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে ৪জন, মার্কেটিং বিভাগে ৩জন এবং অর্থনীতি বিভাগে ৫জন।

এদিকে বিভাগগুলোতে নিয়োগের ক্ষেত্রে আঞ্চলিকতা এবং ঘনিষ্ট স্বজনরা বেশি প্রাধান্য পেয়েছে বলে ঘোরতর অভিযোগ উঠেছে। নিয়োগপ্রাপ্ত ১৪ জনের বায়োডাটা অনুসন্ধানে জানা গেছে, ক্যাম্পাস পাশ্ববর্তী ঝিনাইদহ জেলার ৫ জন, কুষ্টিয়ার ৩ জন এবং উত্তরবঙ্গের ৫ জন।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের তিন কর্তাব্যক্তির মধ্যে একজন বৃহত্তর রংপুরের, দুইজনের বাড়ি কুষ্টিয়া অঞ্চলে এবং ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক যথাক্রমে ঝিনাইদহ ও কুষ্টিয়া অঞ্চলের বলেই এই অঞ্চলগুলোর প্রার্থীরা বেশি প্রাধান্য পেয়েছেন বলে ধারণা করছেন অনেকেই।

নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের বায়োডাটা পর্যালোচনায় জানা গেছে, নিকটাত্মীয় ও পছন্দের প্রার্থীদের মধ্যে অর্থনীতি বিভাগে নিয়োগ পেয়েছেন বাংলা বিভাগের শিক্ষক রোজী আহমেদের ভাই সাহেদ আহমেদ, অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক ড. আলমগীর ভূঁইয়ার পছন্দের প্রার্থী মিথিলা তানজিল ও ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতার স্ত্রী শারমিন আক্তার। পরিসংখ্যান বিভাগে ওই বিভাগেরই সভাপতির বন্ধু তৌহিদুর রহমান ও একই বিভাগের সিনিয়র এক শিক্ষকের প্রার্থী আব্দুল মুয়ীদ।

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে নিয়োগ পেয়েছেন ইংরেজি বিভাগের সভাপতির বোন শিরিনা আক্তার ও ছাত্রলীগ সভাপতি এলাকার প্রার্থী রিপনুজ্জামান। এছাড়া মার্কেটিং বিভাগে বৃহত্তর রংপুর অঞ্চলের প্রার্থীরা বেশি প্রাধান্য পেয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ও অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর আব্দুল মুঈদ বলেন, 'চাকরির ক্ষেত্রে আঞ্চলিকতা ও আত্মীয়তা প্যাকেজ প্রোগ্রাম হয়ে গেছে। পিয়ন পদে আঞ্চলিকতা, আত্মীয়তা দেখা হলেও শিক্ষক পদে সকল কিছুর উর্দ্ধে উঠে কোয়ালিটিকেই প্রাধান্য দেওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।'

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, 'বর্তমান প্রশাসনের সময় যে নিয়োগগুলো হচ্ছে সেগুলো শিক্ষকতার জন্য প্রয়োজনীয় মেধার ভিত্তিতে দেওয়া হচ্ছে। অন্য কোন বিষয় বিবেচনা করে নয়।'

প্রসঙ্গত, গত ২ ফেব্রুয়ারি পরিসংখ্যান বিভাগ, ৪ ফেব্রুয়ারি মার্কেটিং ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ এবং ৫ ফেব্রুয়ারি অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

 

 

 

ঢাকা/অনি আতিকুর রহমান/একে