রবিবার, ২৭ মে ২০১৮, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ

ড. জাফর ইকবালরে উপর হামলা

শাবি প্রতিনিধি | আমারক্যাম্পাস২৪.কম

Published: 2018-03-03 21:44:08

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এর উপর হামলা চালানো হয়েছে।

শনিবার (০৩ মার্চ) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শাবি ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর রক্তাক্ত অবস্থায় ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অপরদিকে ছুরিকাঘাতকারী যুবককে আটক করে ছাত্ররা। তবে হামলাকারীর নাম পরিচয় জানা যায়নি। এছাড়া একজন হামলাকারী মোটরবাইকে করে পালিয়ে যায়।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার এলাকায় গতকাল শুক্রবার ( ০২ মার্চ) ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দুইদিনব্যাপী অনুষ্ঠান চলছিল। গতকাল বিভাগীয় সভাপতি হিসেবে এর উদ্বোধন করেছিলেন ড. জাফর ইকবাল।

উপস্থিত শিক্ষার্থীরা জানায়, ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অনুষ্ঠান মুক্তমঞ্চ এলাকায় পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ড. জাফর ইকবালের মাথায় আঘাত করা হয়। হামলাকারী দুইজন ছিল। হামলার পর সঙ্গে সঙ্গে এক হামলাকারীকে আটক করা হলেও মোটরসাইকেল যোগে আরেক হামলাকারী পালিয়ে যায়। এসময় ইব্রাহিম নামে একজন পুলিশ কনস্টেবলও ছুরিকাঘাতে আহত হন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক মো. রাশেদ তালুকদার জানিয়েছেন, মুক্তমঞ্চ এলাকায় পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ড. জাফর ইকবালের মাথায় আঘাত করা হয়। তবে সঙ্গে সঙ্গে হামলাকারীকে আটক করা হয়েছে। হামলাকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাকি বহিরাগত তা এখনও নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

ড. জাফর ইকবালের ব্যক্তিগত সহকারী জয়নাল আবেদীন জানান, স্যারকে মাথায় আঘাত করা হয়েছে। এ মুহূর্তে তিনি সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অভিযুক্ত ছেলেটিকে শিক্ষার্থীরা বেধড়ক পিটুনী দেয়। এখন সে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও পুলিশের হাতে হেফাজতে আছে। তার নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি। বেধড়ক পিটুনীতে অবস্থা আশংকাজনক । এ ঘটনার প্রতিবাদে শাবিপ্রবিতে বিক্ষোভ শুরু করে শিক্ষার্থীরা।

সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) জ্যোর্তিময় সরকার তপু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত যুবককে অ্যাকাডেমিক ভবনে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। আমরাও ঘটনাস্থলে আছি।

লেখক ও শিক্ষাবিদ এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত ছিল ২জন। এর মধ্যে একজন ছিল মোটরবাইক আরোহী। হামলার পরপরই সে পালিয়ে যায়।

বিভাগীয় শিক্ষার্থীরা  জানান, হামলাকারী দিনভর ঘোরাঘুরি করছিল। তার গতিবিধি সন্দেহজনক ছিল। তবে হামলাকারীকে গণধোলাই দিয়ে আটকে রাখে শিক্ষার্থীরা। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। এদিকে হামলাকারীদের পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি।

এদিকে হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যাললয়ের শিক্ষকদের বিভিন্ন ফোরাম, বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব, শাখা ছাত্রলীগ-ছত্রফ্রন্টসহ সর্বস্তরের সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবিদের সংগঠন। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ, ছাত্রফ্রন্টসহ বিভিন্ন সংগঠণ ক্যাম্পাসে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ মিছিল বের করে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার মাহবুবল হক সাংবাদিকদের জানান, অধ্যাপক জাফর ইকবালের অবস্থা এখন স্থিতিশীল। তাকে ঢাকাস্থ সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে প্রেরণ করা হচ্ছে।

 

 

ঢাকা/ আমার ক্যাম্পাস/জুনেদ আহমদ / এ আর